শনিবার২২শে জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ১৬ই জিলহজ, ১৪৪৫ হিজরি৮ই আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

কনকনে শীতে রাস্তায়ই তাদের রান্না, খাওয়া, ঘুম

বাংলা সংবাদ২৪ ডেস্ক– এবারের বিশ্ব ইজতেমায় স্মরণকালের সবচেয়ে বেশি মুসল্লির সমগম হয়েছে। এক সঙ্গে ৬৪টি জেলার মুসল্লিরা এবারের ইজতেমায় যোগ দেয়ায় ময়দানে মুসল্লিদের চাপ অনেক বেশি। ইজতেমা শুরুর আগেই পুরো ময়দান কানায় কানায় পূর্ণ হয়ে যায়। মূল প্যান্ডেলে স্থান না পেয়ে অনেকে বিভিন্ন খালি জায়গা, রাস্তা ও ফুটপাতে অবস্থান নিয়েছেন।

বিশ্ব ইজতেমা ঘুরে দেখা গেছে, মুসল্লিরা রাস্তার পাশে ফুটপাতে ও সড়কের মাঝখানে খালি জায়গায় অবস্থান নিয়েছেন। তারা রাস্তার মধ্যেই রান্না করছেন। ধুলা-ময়লার মধ্যেই বসে খাওয়া-দাওয়া করছেন।

চাঁদপুর সদর উপজেলার  মুসল্লি আলী হোসেন  বলেন, আমরা ১৫ জনের জামাত বৃহস্পতিবার (৯ জানুয়ারি) সকালে এখানে এসেছি। মূল প্যান্ডেলে স্থান না পাওয়ায় রাস্তার পাশেই অবস্থান নিয়েছি। এখানেই তিনদিন থাকবো। আখেরি মোনাজাত শেষে বাড়ি ফিরবো।তিনি জানান, পানি সংকটে অজু-গোসলের সমস্যা হলেও কিছুই করার নেই। আল্লাহর সন্তুষ্টি অর্জনই বড় কথা। দ্বীনের জন্য মেহনত করতে আসলে কোনো সমস্যকেই সমস্যা মনে করা যাবে না।

রোববার (১২ জানুয়ারি) আখেরি মোনাজাতের মধ্য দিয়ে এবারের প্রথম পর্বের মাওলানা জোবায়ের অনুসারীদের ইজতেমার সমাপ্তি ঘটবে। মোনাজাত শেষে জোবায়ের অনুসারীরা ইজতেমা বুঝিয়ে দেবেন প্রশাসনের কাছে।

চারদিন বিরতি দিয়ে প্রশাসনের কাছ থেকে ময়দান বুঝে নেয়ার পর শুক্রবার (১৭ জানুয়ারি) থেকে মাওলানা সা’দ অনুসারীদের তিনদিনের বিশ্ব ইজতেমা শুরু হবে। ১৯ জানুয়ারি সকালে আখেরি মোনাজাতের মধ্য দিয়ে এ বছরের ইজতেমা শেষ হবে