শনিবার২০শে এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ১১ই শাওয়াল, ১৪৪৫ হিজরি৭ই বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

নারায়ণগঞ্জে পুলিশকে পেটাল গরুর হাটের লোকজন

জেলা প্রতিনিধি–

নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লায় একটি গরুর হাটে জোরপূর্বক ট্রাক থেকে গরু নামানোর সময় ব্যাপারীদের মারধর করা হয়। এ সময় ব্যাপারীরা জাতীয় জরুরি সেবা ৯৯৯ এ কল দিয়ে পুলিশের সহায়তা চায়। ঘটনাস্থলে ফতুল্লা মডেল থানা পুলিশ পৌঁছালে সেখানে ওই হাটের ইজাদারের লোকজন পুলিশের ওপর হামলা করে “

;এতে ফতুল্লা পুলিশের এসআই মিজানুর রহমানসহ ছয় পুলিশ আহত হন। গতকাল মঙ্গলবার (৫ জুলাই) রাতে ফতুল্লার ভুইগড় কবির হোসেনের জমিতে আওয়ামী লীগ নেতা মানিক হোসেনের হাটে ওই ঘটনা ঘটে “

;এ ঘটনায় বুধবার (৬ জুলাই) বিকেলে পুলিশ বাদী হয়ে ফতুল্লা মডেল থানায় ১৭ জনের নাম উল্লেখ করে মামলা দায়ের করেছে।পুলিশের ওপর হামলার পর ঘটনাস্থল থেকে তিনজনকে আটক করা হয়েছে। তাদের কাছ থেকে ধারালো অস্ত্র উদ্ধার করা হয়েছে।”

;মামলার অভিযোগে জানা যায়- জাতীয় জরুরি সেবা ৯৯৯ এ ফোন পেয়ে ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ লিংক রোডের ভূইগড়স্থ সোনালী সংসদের মাঠে জনৈক মানিক এর ইজারাকৃত গরুর হাটে যায় ফতুল্লা মডেল থানা পুলিশ। এর আগে হাটের লোকজন একটি গরু বোঝাই ট্রাক জোরপূর্বক হাটে নেয়ার চেষ্টা হয়। ব্যাপারীরা হাটে গরু নামাতে রাজি না হওয়ায় তাদের মারধর করা হয়।”

;রাত সাড়ে ৮টায় ঘটনাস্থলে পুলিশ গিয়ে দেখে গরুর ব্যাপারীদের মারধর করা হচ্ছে। এতে পুলিশ ইজারাদারের লোকজনকে বাধা দিলে সন্ত্রাসী লোকজন ইট ও লোহার রড নিয়ে পুলিশের ওপর হামলা করে। এতে তাদের হামলায় পুলিশের এসআই মিজানুর রহমানসহ ছয় সদস্য গুরুতর আহত হন।”

;পরে ঘটনাস্থলে অতিরিক্ত পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। ওই সময় ঘটনাস্থল থেকে তিনজনকে আটক করা হয়।তারা হলেন মো. সরদার (২২), অনু (২১) ও মো. সোহেল (৩২)। আট তিনজন ছাড়াও এ হামলার ঘটনায় দায়ের মামলায় মো. তানভীর হোসেন (৪৫), সাজিদ (২৫), সজল (৩০), নাজমুল (৩৭), মো. হুমায়ুন কবির (৫০), সাজ্জাদ (২৫), কাজী মাজিদুল (৪৫), মিন্টু (৫০) মোশারফ হোসেন (৫০), বিজু (২৮) ১৪ আশিক (৩০), মাসুদ মেম্বার (৪৮), রবিন (২৪) ও রাসেলসহ অজ্ঞাতনামা ১৫/২০ জনকে আসামি করা হয়।”

;এ বিষয়ে আহত এস আই মিজানুর রহমান বলেন- গরুর ট্রাক আটকে ব্যাপারীদের মারধরের সময় পুলিশ উপস্থিত হলে আসামিরা অত্যন্ত উচ্ছৃঙ্খল আচরণ করেছে। তারা বিনা উসকানিতে পুলিশের ওপর হামলা করেছে।”

;এ বিষয়ে নারায়ণগঞ্জ জেলা পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জায়েদুল আলম জানান- পুলিশের ওপর হামলাকারীদের কোনভাবেই ছাড় দেওয়া হবে না।