মঙ্গলবার১৬ই জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ১০ই মহর্‌রম, ১৪৪৬ হিজরি১লা শ্রাবণ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

আজ দেখা যাবে সুপার ব্লাড মুন’

আজ পূর্ণগ্রাস চন্দ্রগ্রহণ। রাতে পৃথিবীর ছায়ায় ঢেকে যাবে চাঁদ। চাঁদ ধরা পড়বে একটু অন্য রকম রঙে, অন্য রকম চেহারায়। যাকে বলা হয় ‘সুপার ব্লাড মুন’। এটি এ বছরের একমাত্র পূর্ণগ্রাস চন্দ্রগ্রহণ।
জ্যোতির্বিজ্ঞানীরা বলছেন, উত্তর ও দক্ষিণ আমেরিকা, আফ্রিকা মহাদেশের পশ্চিম অংশ ও ইউরোপের কয়েকটি দেশ থেকে এই গ্রহণ দেখা যাবে। তবে বাংলাদেশ থেকে দেখা যাবে না এই গ্রহণ। দেখা যাবে না এশিয়া মহাদেশের কোনো দেশ থেকেও।
যে কারণে বাংলাদেশে দেখা যাবে না কেন পূর্ণগ্রাস চন্দ্রগ্রহণ
ন্যাশনাল জিওগ্রাফিকের তথ্য অনুযায়ী, ২১ জানুয়ারি (সোমবার) বাংলাদেশ সময় সকাল ১০টা ৪১ মিনিটে পূর্ণগ্রাস চন্দ্রগ্রহণ শুরু হবে। টানা সাড়ে তিন ঘণ্টা চলবে চন্দ্রগ্রহণ। এর মধ্যে ৬২ মিনিট স্থায়ী হবে এই পূর্ণগ্রাস চন্দ্রগ্রহণ।
বিজ্ঞানীরা জানিয়েছেন, প্যাসিফিক স্ট্যান্ডার্ড টাইম (পিএসটি) অনুসারে ২০ জানুয়ারি (রোববার) সন্ধ্যা ৭টা ৩৪ মিনিটে শুরু হবে চন্দ্রগ্রহণ। দিনে সূর্যের আলোয় ঢাকা পড়ে যায় চাঁদ। এ জন্য বাংলাদেশ থেকে দেখা যাবে না সেই গ্রহণ।
এর আগে গত বছরের ২৭ জুলাই শেষ পূর্ণগ্রাস চন্দ্রগ্রহণ দেখা গিয়েছিল। এরপর ফের ২০২১ সালের ২৬ জুন দেখা যাবে পূর্ণগ্রাস চন্দ্রগ্রহণ। ২০১৯-এর মাঝামাঝি ফের চন্দ্রগ্রহণ হবে। ১৬-১৭ জুলাই। তবে সেটা আংশিক চন্দ্রগ্রহণ।
‘সুপার ব্লাড মুন’ কী?
এই চন্দ্রগ্রহণের সময় চাঁদের দিকে তাকালে দেখা যাবে লাল রঙের আভা। প্রতিসরণের (রিফ্র্যাকশান) ফলে আলো পৃথিবী থেকে ঠিকরে চাঁদের অন্ধকার জায়গায় গিয়ে পড়ার জন্যই চাঁদকে লাল রঙের দেখায়। তাই সেই চাঁদকে বলা হয় ‘ব্লাড মুন’।