রবিবার১৪ই এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ৫ই শাওয়াল, ১৪৪৫ হিজরি১লা বৈশাখ, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

বৃষ্টিতে ছন্দপতনে জনজীবন

বৃষ্টির ছবি সংগৃহীত

বাংলা সংবাদ ডেস্ক: রাজধানী ঢাকাসহ সারা দেশে কখনও ঝিরিঝিরি আবার কখনও গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টি নামে, সঙ্গে ছিল কনকনে হাওয়া। এদিকে ফাল্গুনের মাঝামাঝি সময়ে হঠাৎ এই বৃষ্টিতে রাজধানীর পথচারীরা বিপাকে পড়েন। মাত্র ২০ মিনিটের বৃষ্টি কর্মজীবিদের কিছুটা হলেও দুর্ভোগের মধ্যেই ফেলে দেয়।

সোমবার ভোর থেকেই রাজধানীর আকাশ ছিল মেঘে ঢাকা। এরপর ৬টার দিকে টিপ টিপ করে বৃষ্টি শুরু হয়। কিছুক্ষণ পর অবশ্য বন্ধ হয়ে যায়। তবে সকাল ৭টার দিকে আবারও নামে বৃষ্টি।
হঠাৎ এই বৃষ্টির জন্য বেশির ভাগ মানুষ প্রস্তুত ছিল না। সাতসকালে যাদের ঘরের বাইরে ছুটতে হয়েছে, তারা অনেকেই কাকভেজা হয়ে গন্তব্যে পৌঁছান। যানবাহন কম থাকায় স্কুলগামী শিশুদের নিয়ে বিপাকে পড়েন অভিভাবকরা।

স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীদের পাশাপাশি অফিসগামী অনেককেই বৃষ্টিতে ভিজেছেন।
পথচারীদের অনেকে কেউ কেউ দৌঁড়ে আশ্রয় নেন বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের বারান্দায় ও কার্নিশের নিচে। যারা রিকশায় ছিলেন তারাও পর্দা না থাকায় ভিজেছেন। আর যাদের সঙ্গে ছাতা ছিল, তারা রক্ষা পেয়েছেন।

আবহাওয়া অধিদফতর সূত্র জানায়, আজ রাজশাহী, খুলনা, বরিশাল, ঢাকা, সিলেট ও চট্টগ্রাম বিভাগের দু’এক জায়গায় অস্থায়ীভাবে দমকা ও ঝড়ো হাওয়াসহ হালকা বৃষ্টি অথবা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। এছাড়া কোথাও-কোথাও বিক্ষিপ্তভাবে শিলাবৃষ্টি হতে পারে।

দেশের অন্যত্র অস্থায়ীভাবে আংশিক মেঘলা আকাশসহ আবহওায়া প্রধানত: শুষ্ক থাকতে পারে।

সকাল ৯টা থেকে আগামী ২৪ ঘণ্টার আবহাওয়ার পূর্বাভাসে জানানো হয়েছে। শেষরাত থেকে সকাল পর্যন্ত দেশের কোথাও-কোথাও হালকা থেকে মাঝারি ধরনের কুয়াশা পড়তে পারে।
সারা দেশে দিনের তাপমাত্রা প্রায় অপরিবর্তিত থাকতে পারে এবং রাতের তাপমাত্রা সামান্য বৃদ্ধি থাকতে পারে।

আবহাওয়া চিত্রের সংক্ষিপ্তসারে বলা হয়েছে, পশ্চিমা লঘুচাপের বর্ধিতাংশ পশ্চিমবঙ্গ ও তৎসংলগ্ন এলাকায় অবস্থান করছে। মৌসুমের স্বাভাবিক লঘুচাপ দক্ষিণ বঙ্গোপসাগরে অবস্থান করছে