বুধবার২৪শে জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ১৮ই মহর্‌রম, ১৪৪৬ হিজরি৯ই শ্রাবণ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

মৎস্য ও প্রাণিসম্পদমন্ত্রী মো. আব্দুর রহমানের বাসভবনের লিফটে

মন্ত্রীর বাসভবনের লিফটে মারধর করল এক কর্মকর্তা আরেক কর্মকর্তাকে

মৎস্য ও প্রাণিসম্পদমন্ত্রী মো. আব্দুর রহমানের বাসভবনের লিফটে এক কর্মকর্তাকে মারধরের অভিযোগ উঠেছে আরেক কর্মকর্তার বিরুদ্ধে। ভুক্তভোগী ও অভিযুক্ত দুজনই প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরের কর্মকর্তা বলে জানা গেছে।

এদের মধ্যে ভুক্তভোগী কর্মকর্তা হলেন অধিদপ্তরের পরিচালক (প্রশাসন) মলয় কুমার শূর এবং অভিযুক্ত জেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা (লিভ, ডেপুটেশন অ্যান্ড ট্রেনিং রিজার্ভ) মো. আজিজুল ইসলাম।”

মলয় কুমার ইতোমধ্যে এ বিষয়ে ডিএমপির শাহবাগ থানায় একটি হত্যাচেষ্টার মামলা দায়ের করেছেন আজিজুল ইসলামের বিরুদ্ধে। মামলার এজাহারে জানা গেছে- গত বৃহস্পতিবার রাতে প্রশাসনিক কাজে রাজধানীর পরীবাগে মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী আব্দুর রহমানের বাসায় যান মলয় কুমার। অফিসিয়াল কথাবার্তা সেরে লিফটে করে নিচে নামতেই তার ওপর হামলা করে বসেন আগে থেকে লিফটের সামনে ওঁত পেতে থাকা আজিজুল ইসলাম।”

এসময় মলয় কুমারের মুখে ও বুকে বিভিন্ন জায়গায় আঘাত করেন আজিজুল ইসলাম। এতে মলয় কুমার গুরুতর আহত হন। তার শরীর থেকে রক্তক্ষরণ হতে থাকে। পরে ওই ভবনের নিরাপত্তা কর্মীরা এগিয়ে গেলে পালিয়ে যান আজিজ। এরপর তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করে শাহবাগ থানার ওসি মোস্তাজিরুর রহমান বলেন, মলয় কুমার গত বৃহস্পতিবার মামলা দায়ের করেছেন। এখন পর্যন্ত কাউকে গ্রেপ্তার করা হয়নি। মামলাটি আমরা তদন্ত করছি। ”

হামলার সম্ভাব্য কারণ সম্পর্কে ভুক্তভোগী মলয় কুমার শূর জানান- আজিজুল ইসলামকে মন্ত্রণালয় বৃহস্পতিবার পরিচালক পদমর্যাদার একটি পদে পদায়ন করে। যেহেতু মলয় কুমার প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরের পরিচালক (প্রশাসন), তাই এ বিষয়ে মন্ত্রীকে তিনি মতামত দিয়েছিলেন। বিভাগীয় মামলায় শাস্তিপ্রাপ্ত অবস্থায় আজিজুলের নতুন পদায়ন হয়। মলয় কুমার আইন অনুযায়ীই কথা বলেছেন। এটা কারও পক্ষে যেতে পারে, বিপক্ষেও যেতে পারে। এ কারণে আজিজুল তার ওপর ক্ষুব্ধ হয়ে থাকতে পারেন।”

মামলা দায়েরের পর ইতোমধ্যে আজিজুল ইসলামের নতুন পদায়ন বাতিল করা হয়েছে বলে জানা গেছে।