শনিবার২২শে জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ১৬ই জিলহজ, ১৪৪৫ হিজরি৮ই আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

নাটোরে নার্সের পোশাক পরে হাসপাতাল থেকে নবজাতক চুরি

হাসপাতালের সিসি ফুটেজ থেকে সংগৃহীতি ছবি।

নাটোর আধুনিক সদর হাসপাতালের গাইনি ওয়ার্ড থেকে নার্সের পোশাক পরে নবজাতক চুরির ঘটনা ঘটেছে। হাসপাতালের শিশু ওয়ার্ডে নিয়ে নিউমোনিয়ার চিকিৎসা দেওয়ার কথা বলে এক মধ্য বয়সি নারী শিশুটিকে নিয়ে যায়।”

;আজ (শুক্রবার) দুপুর সাড়ে ১১টার দিকে নাটোর সদর হাসপাতালে এ ঘটনা ঘটে। চুরি যাওয়া নবজাতকটি নলডাঙ্গা উপজেলার খাজুরা ইউনিয়নের মহিষডাঙ্গা গ্রামের মাহফুজুর রহমান পলাশ ও হাসনা হেনা শিল্পী দম্পতির প্রথম সন্তান।হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে, গৃহবধূ হাসনা হেনা শিল্পী সন্তান প্রসবের জন্য গত বুধবার নাটোর আধুনিক সদর হাসপাতালের প্রসূতি ওয়ার্ডে ভর্তি হন। ”

;গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুর ১২টার দিকে তিনি একটি কন্যা সন্তান প্রসব করেন। নবজাতকটি নিউমোনিয়ায় আক্রান্ত থাকায় কিছু সময়ের মধ্যেই তাকে হাসপাতালের শিশু ওয়ার্ডে নিয়ে ভর্তি করা হয়। শিশু ওয়ার্ডে ভর্তি করা হলেও শিশুটি গাইনি ওয়ার্ডের ৯ নম্বর বেডে তার মায়ের সঙ্গেই ছিল। “

;আজ  দুপুর সাড়ে ১১টার দিকে নার্সের পোশাক পরা মধ্য বয়সি এক নারী নবজাতকটিকে হাসপাতালের শিশু ওয়ার্ডে নিয়ে নিউমোনিয়ার চিকিৎসা দেওয়ার কথা বলে দাদির কোল থেকে নিয়ে যান। কিছুক্ষন পরে নবজাতকের দাদি খায়রুন নাহার শিশু ওয়ার্ডে ছুটে গিয়ে ওই নারী ও নবজাতককে আর খুঁজে পায়নি। তার চিৎকারে হাসপাতালের লোকজন জানতে পেরে পুলিশে খবর দেন।”

;নাটোর আধুনিক সদর হাসপাতালের আবাসিক স্বাস্থ্য কর্মকর্তা আবু সাঈদ সরকার ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন- হাসপাতালের সিসি টিভির ফুটেজ পরীক্ষা করে দেখা গেছে সকাল ১১টা ৩৬ মিনিটে নার্সের পোশাক পরা মধ্য বয়সি এক নারী নবজাতকটিকে কোলে নিয়ে সোজা হাসপাতালের মেইন গেট দিয়ে বের হয়ে একটি অটোরিকশায় চলে যান।”

;নাটোর সদর থানার ওসি (তদন্ত) আবুল কালাম আজাদ বলেন- খবর পেয়ে হাসপাতালে পৌঁছে সিসি টিভির ফুটেজ দেখে ওই নারীকে আটক এবং শিশুটিকে উদ্ধার করতে অভিযান শুরু করেছি। আশা করছি দ্রুতই শিশুটিকে উদ্ধার করে মায়ের কোলে ফিরিয়ে দিতে পারব।;