শনিবার২২শে জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ১৬ই জিলহজ, ১৪৪৫ হিজরি৮ই আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

চলন্ত বিমানের মধ্যেই নারী বিমানসেবিকার কাছে পুরুষ যাত্রীর এ কেমন দাবি!

ছবি- সংগৃহিত

বাংল সংবাদ২৪ডেক্স-বিমানে মাঝেমধ্যেই যাত্রীদের অদ্ভত সব দাবি সামলাতেই হয় বিমানকর্মীদের। কিন্তু সম্প্রতি চলন্ত বিমানে যে ধরনের দাবি করে বসলেন এক পুরুষ যাত্রী, তা সামলাতে রীতিমতো অপদস্থ হতে হলো নারী বিমান কর্মীদের।
সম্প্রতি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের লস অ্যাঞ্জেলেস থেকে তাইওয়ানগামী তাইওয়ানিজ এয়ারওয়েজের বিমানকর্মীরা অভিযোগ জানিয়েছেন এক ব্যক্তির বিরুদ্ধে। সেই ব্যক্তি চলন্ত বিমানের মধ্যেই নারী কর্মীদের সঙ্গে অভব্যতা করেন বলে যানা যায়। বিমানের নারী কর্মীদের কাছে শৌচকর্ম করবার পর তার পশ্চাদ্দেশ ধুয়ে দেওয়ার আবদার জুড়ে বসেন তিনি। জেফ লিন নামক আর এক বিমানযাত্রী সম্পূর্ণ ঘটনার কথা উল্লেখ করে একটি পোস্ট করেন ফেসবুকে।-
ওই ব্যক্তির ফেসবুক পোস্ট থেকে জানা যায় যে, সম্প্রতি লস অ্যাঞ্জেলেস থেকে তাইওয়ানে আসার সেই বিমানে একজন যাত্রী তার শারীরিক অবস্থার দোহাই দিয়ে বিমানের কর্মীদের অনুরোধ করেন তাকে বিমানের টয়লেট অবধি পৌঁছে দেওয়ার জন্য। তার অনুরোধ মেনে বিমানসেবিকারা যখন তাকে টয়লেটে পৌঁছে দেন, তখন তিনি আরও দাবি করেন যে, তার
নিম্নাঙ্গের পোশাক অনাবৃত করে দিতে হবে। এমনকি তার অন্তর্বাস খুলে দেওয়ারও আবেদন জানান তিনি। ওই ব্যক্তির স্থূলতা দেখে তাকে অসহায় মনে করে এইটুকু সাহায্য তাকে করতে রাজি হয়েছিলেন বিমানসেবিকারা। বিমানের নারী কর্মীদের কাছে তিনি জানান যে তার শৌচকর্ম হয়ে গেছে, এবার তার পশ্চাৎদেশ পরিষ্কার করে দিতে হবে!
প্রাথমিক ভাবে বিমানের নারী কর্মীরা এতে রাজি হননি। বরং কোন পুরুষ সহকর্মীকে ডেকে ওই ব্যক্তিকে সাহায্য করার কথা জানানো হয়। কিন্তু তা শুনে বেঁকে বসেন ওই যাত্রী। তিনি বলতে থাকেন যে, বিমানের নারী কর্মীদেরকেই এই কাজটি করতে হবে। বিমান কর্তৃপক্ষের কাছে তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ জানানোর কথাও বলেন তিনি। বাধ্য হয়ে বিমানসেবিকাদেরই ওই কাজটি করতে হয়।
কিন্তু এই ঘটনার পরে ক্ষুব্ধ বিমান সেবিকারা রীতিমতো সাংবাদিক বৈঠক করে পুরো ঘটনাটি জানান। এমনকি ওই ব্যক্তিকে সাহায্য করার সময় তিনি রীতিমতো বিশ্রী শব্দ করছিলেন বলেও অভিযোগ জানান তারা। তাতেই নড়েচড়ে বসে বিমান কর্তৃপক্ষ।
বিমানসেবিকারা জানান যে, ওই ব্যক্তির কোনো রকম সাহায্যেরই দরকার ছিল না। তা হলে পুরুষ কর্মীদের থেকে সাহায্য নিতে নারাজ হতেন না তিনি। বিমান কর্তৃপক্ষ জানিয়েছেন যে, এরপর থেকে এ রকম ঘটনা ঘটলে তাদের কর্মীদের সব রকম ভাবে সহায়তা করবেন তারা। যদিও ওই ব্যক্তির বিরুদ্ধে কোনও রকম পদক্ষেপ করা হবে কিনা, তা স্পষ্ট করে বলা হয়নি।